কিভাবে ব্লগ সাইট থেকে ইনকাম করা যাই!

যদি প্রশ্ন করা হয় অনলাইন ইনকামের ১০ টি সহজ উপায় কি? তবে ৮০ শতাংশ ফ্রিল্যান্সার উত্তরে ব্লগিং করে টাকা আয় করার কথা বলবে। হ্যা বন্ধুরা, আজকে আমি ব্লগ সাইট থেকে ইনকাম করার সহজ কয়েকটি উপায় শেয়ার করবো।

প্রায়ই আমার ফেসবুকে একটি প্রশ্নের সম্মুখীন হতে হয় যে, আমি কি আমার ব্লগে আর্টিকেল পাবলিশ করে অনলাইন থেকে কত টাকা ইনকাম করতে পারবো? বা আমি কি আমার নিজের ব্লগে আর্টিকেল পাবলিশ করে অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করতে পারবো?

এই প্রশ্নের উত্তর হলো হ্যা। আপনি আপনার নিজের ব্যক্তিগত ব্লগে আর্টিকেল পাবলিশ করে অনলাইন থেকে ইনকাম করতে পারবেন।

এই প্রশ্নের পরিপেক্ষিতে আরও কিছু প্রশ্ন মাথাই আশতে পারে তাহলে কিভাবে ব্লগিং শুরু করবো? কিভাবে আর্টিকেল লিখতে হয়? কিভাবে ব্লগিং করে অনলাইন থেকে বেশি ইনকাম করা যাই? ইত্যাদি ইত্যাদি। এর সবগুলো প্রশ্নের উত্তরই আমাদের ব্লগে শেয়ার করা হবে।

আজকে আমরা শুধুমাত্র আলোচনা করবো কিভাবে ব্যক্তিগত ব্লগ থেকে ইনকাম করা যাই এবং কিসের মাধ্যমে ইনকাম করা যাই এসব নিয়ে। আশা করি সময় দিয়ে পুরো আর্টিকেল টি মনোযোগ দিয়ে পড়বেন।

একটি ব্যাবসায়িক ব্লগে অনলাইন থেকে ইনকাম করা যতটা কঠিন তার থেকে বেশি কঠিন হলো ব্যক্তিগত ব্লগ থেকে ব্লগিং করে ইনকাম করাটা।

এর মূল কারন হলো জনপ্রিয়তা। একটি ব্যাবসায়িক প্রতিষ্ঠান আগে থেকেই অনেক বেশি জনপ্রিয় হয়ে থাকে যার জন্য সার্চ ইঞ্জিন তাদের গুরুত্ব সব সময় বেশি দিয়ে থাকে। যার জন্য তারা সার্চ ইঞ্জিন থেকে প্রচুর পরিমানে ট্রাফিক পেতে থাকে।

কিন্তু ব্যক্তিগত ব্লগ সাইটে আগে থেকে জনপ্রিয়তা থাকে না। এর জন্য একই টপিক এর উপর দুইটি ব্লগে আর্টিকেল থাকলেও সার্চইঞ্জিন যার জনপ্রিয়তা যত বেশি তাকে বেশি গুরত্ব দিবে। এর জন্য ব্লগ সাইট রেংক করানোর জন্য প্রচুর পরিমানে ব্যাকলিংক তৈরি করতে হবে।

ব্যাকলিংক কি? ব্যাকলিংক কিভাবে কাজ করে? কিভাবে থেকে ব্লগ সাইটে ব্যাকলিংক নিবেন? এসব নিয়ে আমরা পরবর্তীতে আলোচনা করবো। আজকে আলোচনা করবো ব্লগিং কি? ব্লগিং কেন করবো? ব্লগিং করে কত টাকা ইনকাম করা যাই? এবং ব্যক্তিগত ব্লগ থেকে ইনকাম করার সহজ ০৩ টি উপায়। আশা করছি আর্টিকেল টি আপনার ভালো লাগবে।

ব্লগিং কি?

ব্লগে বা ওয়েব সাইটে পাঠকদের মতামত প্রদানের জন্য যা তুলে ধরা হয় তাই ব্লগিং। আরও সহজ ভাষাই যদি ব্লগিং এর সঙ্গা বলি তাহলে এমন হবে, “ব্লগ সাইটে বা ওয়েব সাইটে যা লেখালেখি হয় তাই ব্লগিং”।

ব্লগিং এর বিষয় বিভিন্ন রকম হতে পারে নিউজ, বিনোদন, রাজনীতি, খেলাধুলা, ইসলামিক, টেকনোলজি, কাহিনী, সাহিত্য ইত্যাদি।

ব্লগিং নেশা এবং পেশা দুইটাই বলতে পারেন অনেকেই শখ করে ব্লগে লেখা লেখি করেন। আবার অনেকেই ব্লগিং করেন অনলাইন থেকে ইনকাম করার জন্য। অনলাইন থেকে ইনকাম করার সহজ ১০ টি উপায় এর মধ্যে অনত্যম হলো, অনলাইনে লেখালেখি করে ইনকাম।

ব্লগিং করে ইনকাম করার জন্য লেখার মান ভালো হতে হবে। আপনার লেখার মান ভালো না হলে এই ক্যাটাগরিতে সফল হতে পারবেন না৷

নিজের বা প্রতিষ্ঠানের ব্লগ সাইট বা ওয়েবসাইটে আর্টিকেল পাবলিশ করার নামই হলো ব্লগিং।

ব্লগিং কেন করবেন?

ব্লগিং শব্দটির সাথে জড়িত না এমন মানুষ বর্তমান পৃথীবিতে বিরল। আমাদের দেশের মানুষ ১% এর কম মানুষ ব্লগিং এর সাথে জড়িত কিন্তু আপনি যদি ইউরোপ বা আমিরিকার মত দেশ গুলোর দিকে লক্ষ করলে বুজতে পারবেন ব্লগিং এর কদর কত!

যাইহোক ব্লগিং কেন করবো? প্রশ্নটা কমন। ব্লগিং করে আপনি অর্থ উপার্জন করতে পারবেন, ব্লগিং করে আপনি নিজেকে পুরো বিশ্বের সামনে তুলে ধরতে পারবেন এবং আপনার যদি একটি প্রতিষ্ঠান থাকে এটিকেও আপনি পুরো বিশ্ব ভান্ডাদের সামনে তুলে ধরতে পারবেন।

এছাড়াও আপনি আরও বেশ কিছু সুবিধা পাবেন ব্লগিং করে সেগুলো পরবর্তী কোন এক আর্টিকেলে আলোচনা করবো।

ব্লগার কাকে বলা হয়?

আমরা উপরে আলোচনা করেছি ব্লগিং কি? ব্লগিং কেন করবেন? এখন আলোচনা করবো ব্লগার কে? ব্লগার কাকে বলা হয়?

আমি যদি সহজেই বলি তাহলে উত্তর হবে যিনি ব্লগিং করেন তাকেই ব্লগার বলা হয়।

আর একটু সহজ করে যদি বলি তাহলে ব্লগারের সঙ্গা হবে যিনি ব্লগ সাইট তৈরি করেন এবং ব্লগে আর্টিকেল পাবলিশ করেন তাকেই ব্লগার বলা হয়।

একজন ভালো ব্লগার ব্লগিং করে মাসে এক লক্ষ টাকারও বেশি ইনকাম করে থাকেন।

ব্লগিং – এর প্রকারভেদ

একজন ব্লগার বিভিন্ন বিষয় নিয়ে ব্লগিং করে থাকেন। তবুও আপনাদের বুজার সুবিধার্তে নিচে কিছু ব্লগিং এর প্রকারভেদ নিচে তুলে ধরা হলো:

ব্যাক্তিগত ব্লগ

ব্যাক্তি গত ব্লগ হলো যেখানে আপনি আপনার নিজের জ্ঞান অন্যের কাছে তুলে ধরবেন। অর্থাৎ নিজের জ্ঞান আর্টিকেল বা লেখালেখি করে অন্যের কাছে তুলে ধরাই হলো ব্যাক্তিগত ব্লগ।

কোম্পানি বা প্রতিষ্ঠানিক ব্লগ

কোম্পানি বা প্রততিষ্ঠানের তথ্য দিয়ে গঠিত ব্লগকে কোম্পানি ব্লগ বা প্রতিষ্ঠানিক ব্লগ বলা হয়।

নিদির্ষ্ট বিষয়ের উপর ব্লগ

আমরা সাধারনত যে ব্লগ গুলো দেখতে পাই তার বেশির ভাগ ব্লগই এইধরনের। এখানে ব্লগার যেকোন একটা নিষয়ের উপর লেখালেখি করে। যেমন, টেকনোলজি, ট্রাভেলিং, বিনোদন, সংবাদ, ফ্যাশন ইত্যাদি।

এধরনের ব্লগ পাঠক বেশি পছন্দ করে। তাই চাইলে আপনারাও এমন একটি বিষয়ের উপর লেখালেখি করে ইনকাম করতে পারেন।

আমরা পরবর্তীতে এমন কিছু নিশ আপনাদের জানাবো যেগুলোর উপর লেখালেখি করে খুব সহজেই সফলতা অর্জন করতে পারবেন।

ব্লগিং করে মাসে কত টাকা আয় করা যাই?

এতক্ষণ হয়তো ব্লগিং সম্পর্কে কিছুটা ধারনা পেয়েছেন। ব্লগিং কি? ব্লগিং কেন করবো? ব্লগার কাকে বলে? ব্লগিং এর প্রকারভেদ ইত্যাদি। কিন্তু তবুও মাথার ভিতর একটা প্রশ্ন থেকেই যাই ব্লগিং করে কত টাকা আয় করতে পারবো?

ব্লগিং করে মাসে ১ লক্ষ টাকারও বেশি ইনকাম করতে পারবেন। কিন্তু এর জন্য আপনাকে অনেক গুলো ধাপ অতিক্রম করতে হবে। আপনি প্রথম অবস্থাই একটি টাকাও ব্লগিং করে ইনকাম করতে পারবেন না৷

আপনি তখনই ব্লগিং করে ইনকাম করতে সক্ষম হবেন যখন আপনার ব্লগের জনপ্রিয়তা বৃদ্ধি পাবে এবং সার্চ ইঞ্জিন থেকে ট্রাফিক বা ভিজিটর আসবে।

সার্চ ইঞ্জিন থেকে ভিজিটর নেওয়ার জন্য আপনার ব্লগটি এসইও করতে হবে। প্রশ্ন আবারও মাথাই চলে আসলো! Seo কোথায় শিখবো? Seo শিখতে কত দিন লাগে? অনপেজ এসইও কি?

সব প্রশ্নের উত্তর একটি আর্টিকেলে দেওয়া সম্ভব না। আমার পরবর্তী কোন আর্টিকেলে এগুলো নিয়ে আলোচনা করবো। যাইহোক যে কথা বলছিলাম ব্লগিং করে মাসে কত টাকা আয় করা যাই?

আপনি ব্লগিং করে প্রতিমাসে বিশ হাজার থেকে এক লক্ষ টাকা ইনকাম করতে পারবেন৷ এর জন্য আপনাকে ব্লগিং তৈরির প্রথম দিন থেকে পরবর্তী ৬ মাস প্রতি দিন ব্লগে একটি করে এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল পাবলিশ করেন, ব্যাকলিংক করেন, এসইও করেন।

মূলকথা হলো বেশি ইনকামের জন্য বেশি বেশি অর্গানিক ট্রাফিক প্রয়োজন। এখন কথা হলো যে, ট্রাফিক থাকলেই ব্লগ থেকে ইনকাম হবে?

উত্তরে না। ট্রাফিক থাকলেও ইনকাম হবে না কারন ইনকামের জন্য জন্য আরও কিছু ধাপ পার করতে হবে। এখন আমরা সেগুলো নিয়ে নিচে আলোচনা করবো।

আরো পড়ুন—

ব্লগ থেকে ইনকাম করার সহজ ০৩ টি উপায়

আমরা উপরে ব্লগিং এর বিভিন্ন বিষয় সম্পর্কে আলোচনা করেছি। আশা করি সেখান থেকে কিছুটা হলেও বুজতে পেরেছেন ব্লগিং কি? এখন আমরা ব্লগ থেকে ইনকাম করার সহজ ০৩ টি উপায় নিয়ে আলোচনা করবো।

গুগল এডসেন্স থেকে ইনকাম

গুগল এডসেন্স হলো পুরো বিশ্বে যত গুলো বিজ্ঞাপন প্রতিষ্ঠান আছে তাদের মধ্যে জনপ্রিয় এবং পরিচিত বিজ্ঞাপন নেটওয়ার্ক। বর্তমানে যত গুলো ব্লগার আছে তার প্রায় ৯৫% গুগল এডসেন্স থেকে বিজ্ঞাপন নিয়ে থাকে তাদের ব্লগ সাইটের জন্য।

ব্লগিং করে ইনকাম করার জন্য গুগল এডসেন্স এর বিকল্প নাই। আপনি যদি ব্লগিং করে মাসে একটা ভালো পরিমান আর্নিং করতে চান তবে গুগল এডসেন্স আপনার জন্য সেরা হবে।

আপনি চাইলে খুব সহজেই গুগল এডসেন্স অনুমোদন নিয়ে ব্লগিং করতে পারেন গুগল এডসেন সেই সকল ব্লগ বা ওয়েবসাইটকেই তাদের বিজ্ঞাপন ব্যবহারের অনুমোদন দিবে যারা তাদের সকল রুলস মেনে নিয়েছে এবং সেই রুলস অনুযায়ী ব্লগিং করবে।

গুগল এডসেন্স অনুমোদন নেওয়ার জন্য সবচেয়ে বড় ভূমিকা পালন করে ব্লগের কনটেন্ট। এবং আর্নিং এর বিষয়ও কনটেন্ট বড় ভূমিকা পালন করে থাকে। কারন এডসেন্স এর বিজ্ঞাপনের CPC কনটেন্ট এর উপর ভিত্তি করেই দিয়ে থাকে।

এডসেন্স থেকে ইনকাম হয় মূলত বিজ্ঞাপনে ক্লীকের উপর ভিত্তি করে। আপনার বিজ্ঞাপনে যত বেশি ইউনিক ক্লিক পড়বে তত বেশি আপনার এডসেন্স থেকে ইনকাম হবে।

এজন্য ব্লগিং করার সময় অবশ্য ভিজিটর এর গুরত্ব অপরিসীম। এডসেন্স থেকে ইনকাম করার জন্য অর্গানিক ট্রাফিক প্রয়োজন। আর অর্গানিক ট্রাফিক বা ভিজিটর নেওয়ার জন্য ব্লগকে সুন্দর মত এসইও করতে হবে এবং নিয়মিত কিওয়ার্ড রিসার্চ করে পোস্ট করতে হবে।

Buysell Ads থেকে ইনকাম

Buysell Ads ও গুগলের মত কিছু রুলস মেনে তাদের কাছে বিজ্ঞাপন নেওয়ার জন্য আবেদন করতে হবে৷ এবং তারা রিভিউ করে আপনার ব্লগটি উপযুক্ত মনে হলে এপ্রুভ করে দিবে।

এটিও আপনার গুগলের মত উন্নতমানের বিজ্ঞাপন প্রতিষ্ঠান। একটি কথা না বললেই নই গুগল এডসেন্স অনুমোদন নেওয়া যতটা কঠিন তার থেকে বেশি কঠিন Buysell বিজ্ঞাপন এপ্রুভ করানো।

আপনার ব্লগে যদি মাসিক ৭০/৮০ হাজার ট্রাফিক আসে তখনই আপনি আপনার ব্লগে Buysell বিজ্ঞাপন অনুমোদন পাবেন।

এফিলিয়েট বিজ্ঞাপন থেকে ইনকাম

আপনারা হয়তো ডিজিটাল মার্কেটিং বা এফিলিয়েট মার্কেটিং এর কথা শুনে থাকবেন। এফিলিয়েট বিজ্ঞাপন হলো একটি কমিশন ভিত্তিক বিজ্ঞাপন নেটওয়ার্ক। এখানে বেশিরভাগ বিজ্ঞাপনই পণ্য বিক্রয় এর জন্য দেওয়া হয়ে থাকে।

আপনার যতগুলো এফিলিয়েট বিজ্ঞাপনের উপর ক্লিক পড়বে এবং যদি ক্লিক দাতা পণ্যটি ক্রয় করে তাহলে আপনি কমিশন পাবেন বিক্রয় দাতার কাছে থেকে।

আপনার ব্লগে যদি প্রচুর ভিজিটর থাকে তাহলে কনটেন্ট রিলেটেড এফিলিয়েট বিজ্ঞাপন দিয়ে ইনকাম করতে পারেন।

বর্তমানে এফিলিয়েট মার্কেটিং এর চাহিদা অনেক। সুতারাং আপনিও এখান থেকে ভালো একটা অর্থ উপার্জন করতে পারেন।

উপসংহার

কোন কিছুই আপনা- আপনি চলে আসে না। সব কিছুই নিজের জ্ঞান – বুদ্ধি এবং পরিশ্রম করে অর্জন করে নিতে হয়। সুতারাং ব্লগিং করতে এসে হাল ছেড়ে দিলে চলবে না। আমরা উপরে ব্লগিং রিলেটেড বেশ কিছু বিষয় নিয়ে আলোচনা করেছি।

আপনি যদি পুরো আর্টিকেল টি পড়ে থাকেন তাহলে বুজতে পারবেন ব্লগিং কি? আপনার জন্য ব্লগিং করা ঠিক হবে কি না৷ যদি মনে হয় আপনি পারবেন এবং আপনার হাতে অনেক সময় আছে তাহলে এই সেক্টরে কাজ করে নিজের ক্যারিয়ার দাড় করাতে পারবেন।

আমরা উপরে যে ০৩ বিজ্ঞাপন নেটওয়ার্ক নিয়ে আলোচনা করেছি চাইলে গুগল এডসেন্স সহ সব গুলো বিজ্ঞাপন নেটওয়ার্ক আপনার ব্লগে বসিয়ে একটা ভালো মানের প্রফিট আর্নিং করতে পারবেন।

1 thought on “কিভাবে ব্লগ সাইট থেকে ইনকাম করা যাই!”

Leave a Comment